নওগাঁয় অসহায় কৃষকের পাশে জেলা যুবলীগ

নওগাঁয় অসহায় কৃষকের পাশে জেলা যুবলীগ

মামুন পারভেজ হিরা,নওগাঁ ঃ দূর্যোগে অসহায় কৃষকের ধান কেটে দিতে নওগাঁয় একশোটি কমিটি গঠন করেছে জেলা যুবলীগ। কমিটির সদস্যরা প্রতিদিনই চাষিদের ধান কেটে ঘরে তুলে দিচ্ছেন। এই কার্যক্রমে উপকৃত হচ্ছেন প্রান্তিক কৃষক। 
যুবলীগের সাধারন সম্পাদক বিমান কুমার রায় জানান, চলমান লকডাউনে শষ্য প্রধান নওগাঁয় কিছুটা শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। ধান কাটায় খরচ পড়ছে বেশী। তাই অনেক দরিদ্র চাষি পাকা ধান ঘরে তুলতে পারছেন না। সমস্যার সমাধানে জেলা জুড়ে ধানাকাটার জন্য যুবলীগের সদস্যদের নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। চাষিরা ফোন করলে সহায়াতা প্রদান করা হচ্ছে।  
বৃহস্পতিবার দিনভর নওগাঁ সদর উপজেলার সুলতানপুর মাঠে দরিদ্র চাষি হারুনূর রশীদের জমির পাকা ধান কেটে ঘরে তুলে দেয় যুবলীগের কর্মিরা। এতে নেতৃত্ব দেন বিমান কুমার রায়। এসময় চাষি হারুন জানান, ‘লকডাউনের কারনে এলাকায় শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। পাওয়া গেলেও মজুড়ি বেশী দিতে হচ্ছে। এ অবস্থায় পাকা ধান ঘরে তুলতে পারছিলাম না। উপায়ন্তর না পেয়ে যুবলীগের ভাইদের সাথে যোগাযোগ করি। তারা ধান কেটে দেয়ায় মজুরি লাগলো না। আমার অনেক উপকার হলো।
পাশের গ্রামের চাষি মুরসালীন বলেন, যুবলীগের সাধারন সম্পাদক বিমান কুমার রায় গেল বছরও এরকম উদ্যোগ নিয়ে দরিদ্র ও অসহায় কৃষকের ধান ঘরে তুলে দিয়েছিলেন। এবারো সেই উদ্যোগ নেয়ার খবর ছড়িয়ে পড়েছে। জানতে পেয়ে খবর দিলে তারা আমার ১ বিঘা জমির ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়েছেন।
এদিকে জেলা যুবলীগের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় বিশিষ্টজনরা। নওগাঁ জেলা প্রেস কাবের সভাপতি বিশ্বজিৎ সরকার মনি জানান- যুবলীগের এই উদ্যোগ জেলা জুড়ে ব্যাপক সারা ফেলেছে। ধান পাকার পর থেকে প্রতিদিনই তারা জেলার বিভিন্ন স্থানে কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিচ্ছেন। এতে একদিকে যেমন শ্রমিক সংকটে পাকা ধান ঘরে তোলা নিয়ে কৃষকের দুশ্চিন্তা কেটে গেছে, অন্যদিকে বিনা খরচে ধান ঘরে উঠায় দরিদ্র চাষিরা উপকৃত হচ্ছেন। প্রতিটি কাজে যুবকরা এভাবে এগিয়ে আসলে সমাজে একটি ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।#