নওগাঁ’র এসিআই ফুডস-এর ১৩ হাজার কেজি সুগন্ধি অতপ চাল আত্মসাৎ

১৫ দিন পর রংপুর থেকে চাল উদ্দার ঃ ২ জন আটক

নওগাঁ’র এসিআই ফুডস-এর ১৩ হাজার কেজি সুগন্ধি অতপ চাল আত্মসাৎ

মামুন পারভেজ হিরা,নওগাঁ ঃ চালকের ভুয়া পরিচয় দিয়ে নওগাঁ’র মহাদেবপুর থেকে নারায়নগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জ মোকামে পৌঁছে দেয়ার নামে এ সি আই ফুডস লিঃ এর সাড়ে ১৪ লক্ষ টাকা মুল্যের ১৩ হাজার কে জি সুগন্ধি আতপ চাল প্রতারনা করে আত্মসাতের ১৫ দিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

মহাদেবপুর থানা পুলিশ সোমবার আত্মসাৎকৃত চালের মধ্যে প্রায় ৯ হাজার কেজি চাল এবং   প্রতারক চক্রের মুল হোতাসহ ২ জনকে আটক করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে আটক আসামীদের কোর্টে সোপর্দ করা হয়েছে। 

মহাদেবপুর থনার াফিসার্স ইনচার্জ আজম উদ্দিন মাহমুদ বলেছেন গত ১৮ এপ্রিল মহাদেবপুর উপজেলার সরস্বতিপুর বাজারে অবস্থিত এ সি আই ফুডস লিঃ এর উক্ত ১৩ হাজার কেজি সুগন্ধি আডপ চাল নারায়নগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ বাজারে আব্দুল্লাহ ষ্টোরে সরবরাহ করতে মহাদেবপুর ভাই ভাই ট্রান্সপোর্টকে একটি ট্রাক করার অনুরোধ জানায়। প্রেক্ষিতে ভাই ভাই ট্রান্সপোর্ট ঐ দিন ঢাকা আশুলিয়া বেরী বাঁধ এলাকার জনৈক আইনুল শেখ-এর পুত্র স্বপন পরিচয়ধারী একজন চালককে তার ট্রাক নং ঢাকা-মেট্রো-ট-২০-১২৫৪ ট্র্কাটি নিয়ে এ সি আই ফুডস লিমিটেড-এ পাঠায়। ১৮ এপ্রিল ২০২১ তারিখ দুপুর ২টা ৪ মিনিটে উক্ত ১৩ হাজার কেজি চিনিগুড়া চাল নিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। কিন্তু উক্ত চাল মোকামে পৌছায় না এবং চালক এবং হেলপারের দেয়া মোবাইল নম্বরগুলো বন্ধ থাকায় সন্দেহের সৃষ্টি হয়। ট্রান্সপোর্ট এবং এসিআই ফুডস-এর মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। পরে ২১ এপ্রিল ভাই ভাই ট্রান্সপোর্ট-এর পক্ষে সুশান্ত কুমার চক্রবর্তী এবং এসিআই ফুডস-এর পক্ষে স্থানীয় ম্যানেজার এম এ সাত্তার পৃথক পৃথক ভাবে মহাদেবপুর থানায় দু’টি সাধারন ডাইরী দায়ের করেন। 

পরবর্তীতে বিষয়টি মহদেবপুর থানায় মামলা হিসেবে লিপিবদ্ধ করা হয় যার নম্বর ১ তারিখ ০১-০৫-২০২১ইং ধারা ৪০৬/৪২০/৩৪ পেনাল কোড।  

খোঁজাখুজির এক পর্যায়ে উক্ত ড্রাইভার ও হেলপারের দেয়া ঠিকানা ভুয়া বলে প্রমানিত হয়। পুলিশ তদন্তের এক পর্যায়ে বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলাধীন সদর হাসরা গ্রামের সাবেক মেম্বর মোঃ হেলাল উদ্দিন মন্ডলের সম্পৃক্ততা থাকার সম্ভাবনা খুজে পান। 

প্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল মান্নান মিয়ার সার্বক্ষনিক নির্দেশনায় এবং ওসি আজম উদ্দিন মাহমুদের তত্বাবধানে সংগীয় ফোর্স সহ গত ৩ এপ্রিল দুপুরে উক্ত হেলালকে নিজ এলঅকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। তার দেয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক ঐ রাতেই রঙপুর জেলার গঙ্গাচড়া উপজেলা সদরের মেসার্স নাইম ট্রেডার্স থেকে প্রতারনার মাধ্যমে চুরি যাওয়া চালের মধ্যে  প্রায় ৯ হাজার কে জি চাল উদ্ধার করা হয়। সেই সাথে মেসার্স নাইম ট্রেডার্সের ম্যানেজার লেবু মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়।  উদ্ধারকৃত চালসহ আটককৃতদের মহাদেবপুর থানায় নিয়ে আসা হয়। থানায় প্রয়োজনীয় দাপ্তরিক কার্যাদি মেষ করে আসামীদের কোর্টে সোপর্দ করা হয়। 
মহাদেবপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ মোঃ আজম উদ্দিন মাহমুদ বলেছেন এটি একটি প্রতারক চক্রের কাজ। আটক হেলাল উদ্দিন মন্ডল এই চক্রের মুল হোতা। তার বিরুদ্ধে বগুড়ার শেরপুর, ধুনট ও ঠাকুরগাঁও সদর থানায় চুরি, ডাকাতির প্রস্তুতি এবং প্রতরনার মাধ্যমে আত্মসাতের অভিযোগে ৬টি মামলা রয়েছে।