মহাদেবপুরে মাদকসহ স্বামীর বদলে স্ত্রী আটক, পরে বদল

মহাদেবপুরে মাদকসহ স্বামীর বদলে স্ত্রী আটক, পরে বদল


মহাদেবপুর প্রতিনিধি ঃ নওগাঁর মহাদেবপুর থানা পুলিশ মদকসহ স্বামীর বদলে স্ত্রীকে আটক করে থানায় নিয়ে আসার পর স্বামী থানায় এসে আত্মসমর্পন করলে স্ত্রীকে ছেড়ে দেয়া হয়। পুলিশ বলছে, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্ত্রীকে থানায় আনা হয়েছিল।
স্থানীয়রা জানান, মহাদেবপুর থানার এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার বিকেলে অভিযান চালিয়ে উপজেলার এনায়েতপুর ইউনিয়নের শেরপুর উত্তরপাড়া গ্রামের মোজাম্মেল হকের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান মতিনের বাড়ীর খড়ের পালার ভিতর থেকে ৮ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেন এবং মতিনের স্ত্রী শাপলা খাতুনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। কিন্তু গভীর রাতে মতিন থানায় আত্মসমর্পন করলে তার স্ত্রীকে ছেড়ে দেয়া হয়। এনিয়ে এলাকায় কানাঘুষা শুরু হয়।
জানতে চাইলে মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, তার স্ত্রী একজন শিক্ষিকা। তিনি মাদক বিক্রির সাথে জড়িত নন। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে থানায় আনা হয়েছিল। স্থানীয় চেয়ারম্যানের সহায়তায় তার স্বামীকে আটক করে তার স্ত্রীকে ছেড়ে দেয়া হয়।
এনায়েতপুর ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান মিঞা জানান, মাদক উদ্ধারের পর মতিনকে কোথাও পাওয়া যাচ্ছিলনা। মাদক বিক্রেতা মতিন যাতে ধরা দেয় সেজন্য পুলিশ বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে। মতিনকে ধরা দিতে বাধ্য করার জন্য পুলিশ তার স্ত্রীকে নিয়ে যায়। পরে মতিনকে থানা পুলিশে সোপর্দ করলে পুলিশ তার স্ত্রীকে ছেড়ে দেয়। তিনি জানান, যেকোন উপায়ে এলাকা মাদকমুক্ত করা হবে। এজন্য তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।
মতিনের স্ত্রী শাপলা খাতুন মহিষবাথান মোড়ে অবস্থিত একটি কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষিকা। তিনি দোষী না হলেও তাকে থানায় নিয়ে গিয়ে তার স্বাভাবিক সুনাম ক্ষুন্ন হয়ে থাকতে পারে। স্বামীর অপরাধে স্ত্রীকে থানায় নিয়ে যাওয়া কতখানি যুক্তিযুক্ত তা নিয়ে সচেতন মহলে আলোচনার ঝড় উঠেছে।#