নওগাঁর মহাদেবপুরে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৫৬৯ খামারি পেল ৪৭ লাখ টাকার প্রণোদনা

নওগাঁর মহাদেবপুরে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৫৬৯ খামারি পেল ৪৭ লাখ টাকার প্রণোদনা


মামুন পারভেজ হিরা,নওগাঁ ঃ নওগাঁর মহাদেবপুরে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৫৬৯ জন খামারি পেল ৪৭ লাখ ২৫০ টাকার আর্থিক প্রণোদনা। উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের তিগ্রস্ত ডেইরি ও পোল্ট্রি খামারিরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে এ সহায়তা পেয়েছেন। সম্প্রতি রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে দেশের তিগ্রস্ত চার লাখ ৫৭ হাজার ৫০০ জন খামারির মাঝে ৫৬৮ কোটি টাকার প্রণোদনা বিতরণ কার্যক্রম এর উদ্বোধন করেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। উপজেলা  প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের অধীনে প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্প (এলডিডিপি) থেকে জরুরি কার্যক্রমের আওতায় খামারিদের এ আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে সরকার। করোনাকালে তিগ্রস্ত গরু, লেয়ার, সোনালী, ব্রয়লার মুরগি ও হাঁস খামারিদের আর্থিক তি পোষাতেই এ সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। উপজেলার ৫৬৯ জন পোল্ট্রি ও ডেইরি খামারি প্রণোদনার অন্তর্ভূক্ত রয়েছেন। যারা প্রত্যেকেই বিভিন্ন ক্যাটাগরি/সাব ক্যাটাগরিতে নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ পাবেন। ৩৫৫ জন ডেইরি খামারি ৩৬ লাখ ৪৫ হাজার, ৯৪ জন সোনালী মুরগি খামারি ৫ লাখ ৭৬ হাজার, ৮৭ জন ব্রয়লার মুরগি খামারি ১১ লাখ ৮ হাজার ১২৫, লেয়ার মুরগি খামারি ১২ জন ২ লাখ ২৫ হাজার ও ২১ জন হাঁসের খামারি ১ লাখ ৩৬ হাজার ১২৫ টাকা প্রণোদনা পেয়েছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে আরও জানা যায়, ডেইরি (২-৫টি গরু) ১০ হাজার, ডেইরি (৬-৯টি গরু) ১৫ হাজার, ডেইরি (১০-২০ টি গরু) ২০ হাজার, সোনালী মুরগি (১০০-৫০০টি) ৪ হাজার ৫’শ টাকা, সোনালী (৫০১-১হাজার) ৬ হাজার ৭৫০ টাকা, সোনালী (১হাজার- বেশি) ৯ হাজার, ব্রয়লার (৫’শ -১ হাজার) ১১ হাজার ২৫০ টাকা, ব্রয়লার (১ হাজার-২ হাজার) ১৬ হাজার ৮৭৫ টাকা, ব্রয়লার (২ হাজারের বেশি) ২২ হাজার ৫’শ টাকা, লেয়ার (২’শ -৫’শ) ১১ হাজার ২৫০, লেয়ার (৫’শ- ১ হাজার) ১৬ হাজার ৮৭৫ টাকা, লেয়ার (১ হাজারের বেশি) ২২ হাজার ৫০০ টাকা পাবেন। সেইসাথে হাঁসের খামার (১’শ -৩’শ) ৩ হাজার ৩৭৫ টাকা, হাঁস (১’শ -৩’শ) ৬ হাজার ৭৫০ টাকা, হাঁস ৫০০ এর বেশি থাকলে সেই খামারি পাবেন ১১ হাজার ২৫০ টাকা। উপজেলার কয়েকজন খামারির সাথে কথা হলে তারা জানায়,করোনায় তাদের অনেক তি হয়েছে। ফলে খামারিরা পেশা পরিবর্তন করতে বাধ্য হচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার পেয়ে খামারিরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। উপজেলা প্রাণীসম্পদ অফিসারের (ইউএলও) দায়িত্বে থাকা ভেটেরিনারি সার্জন ডা. গোলাম রব্বানী বলেন, তিগ্রস্ত খামারিদের আর্থিক প্রণোদনার কার্যক্রম গত ১৭ ফেব্রুয়ারি উদ্বোধন হয়েছে। প্রকল্প নীতিমালা অনুসারে তালিকাভুক্ত সকল পোল্ট্রি ও ডেইরি খামরি প্রণোদনার টাকা পাবেন। মহাদেবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মিজানুর রহমান মিলন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার জনবান্ধব সরকার। তার সবচেয়ে বড় প্রমাণ হচ্ছে প্রাণিসম্পদ খাতে প্রণোদনা প্রদান করা।